বলি-হিরো জিতেন্দ্রর বিরুদ্ধে চাচাতো বোনকে যৌন নিপীড়নের পর্দা ফাঁস!

0

হ্যাশট্যাগ মি টু (#metoo), সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক, টুইটার ও অন্যান্য সাইটগুলোতে ঢুঁ দিলে প্রায়ই চোখে পড়ছে এটি। নিজেদের জীবনে ঘটে যাওয়া যৌন হয়রানির নানা কথা সেখানে অকপটে খুলে বলছেন নারী। যেসব কথা সযতনে মনের বাক্সে বন্দী ছিল, হ্যাশট্যাগ মি টুর আকাশে সেগুলোই যেন উড়ছে ডানা মেলে। প্রকাশ পাচ্ছে সমাজের নোংরা, কুৎসিত চেহারা। খুলে যাচ্ছে অনেকের মুখোশ।

যৌন হয়রানির প্রতিবাদে মি টুর কল্যাণে সরব নারী। এবারের প্রতিবাদ অভিনব এ কারণে যে নারী নিজ জীবনে ঘটে যাওয়া যৌন হয়রানির কথা বলছেন নিজের মতো করে। দ্বিধা-লাজ ঝেড়ে ফেলছেন। কৃতকর্মের জন্য যার লজ্জা পাওয়া উচিত, তীর ছুঁড়ছেন তারই দিকে।

বলিউডে যৌন হেনস্তার ঘটনা নতুন নয়। মাঝেমধ্যেই অভিনেতাদের বিরুদ্ধেও এই অভিযোগ ওঠে। হলিউডের মতো বলিউড টাউনেও সম্প্রতি জনপ্রিয় হয়েছিল #Metoo। যেখানে যৌন হেনস্তার শিকার হয়েও যে সমস্ত অভিনেত্রীরা চুপ ছিলেন, তাদের অনেকেই মুখ খোলেন।

পিছিয়ে ছিলেন না সাধারণ নারীরাও। বেশ কয়েকজন খ্যাতনামা ব্যক্তিত্বের নামও জড়ায় তাতে।‌ কিন্তু এবার এমন একজনের বিরুদ্ধে এই যৌন হেনস্তার অভিযোগ উঠেছে, যা শুনে হতবাক অনেকেই। তিনি আর কেউ নন, বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা জিতেন্দ্র। অভিযোগকারিনী আর কেউ নয়, হিমাচল প্রদেশের বাসিন্দা জিতেন্দ্রর চাচাতো বোন।

ইতিমধ্যে থানায় বর্ষীয়ান এই অভিনেতার বিরুদ্ধে অভিযোগও দায়ের করেছেন তিনি। তবে ঘটনাটি বহুদিন আগের। জিতেন্দ্র তখন ২৮ বছর বয়সি যুবক। আর অভিযোগকারিনীর বয়স ১৮। তখনই নাকি সেই কুকীর্তি ঘটিয়েছিলেন জিতেন্দ্র।

কিন্তু কেন এত বছর পর এই অভিযোগ আনলেন সেই নারী এমন প্রশ্নের জবাবে‌ তিনি জানান, মা-বাবা তাদের ভাইপোর কুকীর্তির কথা জানতে পারলে খুবই কষ্ট পেতেন। তাই তারা মারা যাওয়ার পর আমি পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করলাম।

ঘটনার দিন ঠিক কী হয়েছিল, সেই প্রসঙ্গে তিনি জানান, ‘‌সেদিন জিতেন্দ্র সিনেমার শ্যুটিং দেখানোর নাম করে বাবার কাছ থেকে অনুমতি নিয়ে আমাকে বাড়ি থেকে নিয়ে যায়। এরপরই সে আমাকে যৌন নিপীড়ন করে। ঘটনার কথা আমি কাউকে জানাতে পারিনি। মা-বাবা কষ্ট পাবে বলে তাদেরও জানায়নি। দীর্ঘদিন ধরে আমি অবসাদে ভুগেছি।’‌


এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। ebizctg.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে ebizctg.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply