৩৩০ কোটি ডলার ক্ষতির মুখে মার্ক জাকারবার্গ!

0

শুধু অর্থ উপার্জনই জাকারবার্গের চিন্তা নয়, এর সঙ্গে বরং তিনি একটি সুন্দর সমাজ ব্যবস্থা ও পারষ্পরিক যোগাযোগ ব্যবস্থারও ঠিকঠাক উন্নয়ন নিয়ে কাজ করতে চান। একই রকম মনোভাব তিনি আশা করেন বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকেও। শুধু অর্থকড়ি উপার্জনের চিন্তা নিয়ে পড়ে থাকলে চলবে না। একই সঙ্গে যোগাযোগের জন্য প্রয়োজনীয় আর উপকারী উদ্যোগ নিয়েও ভাবতে হবে। তাতে যদি আপত্তি থাকে, তাহলে ফেসবুকের সঙ্গে ব্যবসায় না জড়ানোই ভালো। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মার্ক জাকারবার্গ এমন সোজাসাপ্টাভাবেই বলে দিয়েছেন বিনিয়োগকারীদের। ম্যাশেবল ওয়েবসাইট থেকে জানা যায়, ইন্টারনেটভিত্তিক যোগাযোগব্যবস্থার উন্নয়নে নেওয়া উদ্যোগ সম্পর্কে বলতে গিয়ে এ কথা জানান জাকারবার্গ। ফেসবুকের লক্ষ্য যে কেবল অর্থ উপার্জনে সীমাবদ্ধ নয়, তা এভাবেই বুঝিয়ে দেন জাকারবার্গ।

ফলশ্রুতিতে সাম্প্রতিক সিদ্ধান্ত এই যে, ফেসবুক ব্যবহারকারীর নিউজ ফিডে এখন থেকে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান কিংবা কোনো সেলিব্রেটির করা পোস্ট থেকে পরিবার কিংবা বন্ধুদের করা পোস্ট বেশি দেখানো হবে। তবে বাণিজ্যিক পোস্ট কমিয়ে নিউজ ফিডে বন্ধুদের পোস্টকে অধিক গুরুত্ব দেওয়ার জেরে ২৩ বিলিয়ন ডলার ক্ষতির মুখে পড়তে যাচ্ছে ফেসবুক। তাছাড়া, ফেসবুকের শেয়ার দরের সঙ্গে সহ-প্রতিষ্ঠাতা জাকারবার্গের আয়ও কমেছে। বিখ্যাত ম্যাগাজিন ফোর্বসের গবেষণা অনুসারে, জাকারবার্গের ব্যক্তিগত ক্ষতির পরিমাণ তিন শত ত্রিশ কোটি ডলার!

ইতিমধ্যে ফেসবুকের শেয়ার দরও কমেছে চার দশমিক ৪০ শতাংশ। শুক্রবার দিন শেষে ফেসবুকের শেয়ার দর নেমে আসে ১৭৯ ডলার ৩৭ সেন্টে। বৃহস্পতিবার এ কোম্পানির শেয়ার দর ছিল ১৮৭ ডলার ৭৭ সেন্ট।

এ ব্যাপারে জাকারবার্গ তার ফেসবুকে লেখেন, গত কয়েক বছরে বাণিজ্যিক পোস্টে ভরে গেছে নিউজ ফিড, এতে ঢাকা পড়ছে ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত পোস্টগুলো। সপ্তাহ্খানেকের মধ্যেই নিউজ ফিডে বড় ধরনের পরিবর্তন দেখতে পাবেন। জাকারবার্গ জানান, ফেসবুক যেন মানুষ শুধুই মজা করার জন্য ব্যবহার না করেন, মানুষের সত্যিকারের ভালো যাতে ফেসবুকের মাধ্যমে হয় সেটিও খেয়াল রাখতে হবে। তবে ফেসবুকের এ নতুন নিউজ ফিড পুরোপুরিভাবে কার্যকর হতে আরো কয়েক মাস লেগে যাবে।


এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। ebizctg.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে ebizctg.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।